English

বাংলাপ্রকাশ

সৃজনশীল প্রকাশনার প্রতিশ্রুতি নিয়ে বাংলাপ্রকাশ আত্মপ্রকাশ করে ০১ এপ্রিল, ২০০৭-এ। শুরুতেই বাংলাপ্রকাশ সৃজনশীল ও মননশীল প্রকাশনার উৎকর্ষ সাধনে সক্ষম এবং বোদ্ধামহলের প্রশংসায় সিক্ত হয়। প্রকাশনার উন্নত মান ও বইয়ের বিষয়বস্তুর জন্য লেখক অর্জিত মাধুর্যের 'রূপকথার ইলিশ' (বাংলাপ্রকাশ প্রকাশিত) বইটি কানাডা সরকারের বিশেষ সম্মাননাপত্র লাভ করে। ২০০৮ সালের অমর একুশে বইমেলায় বাংলাপ্রকাশ প্রকাশিত কবি নির্মলেন্দু গুণ- এর 'আত্মকথা ১৯৭১' সর্বমহলে ব্যাপক আলোচিত ও আলোড়িত হয়। বইটি দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার বিচারে সেরা ১০ মননশীল বইয়ের একটি হিসেবে নির্বাচিত হয়। অর্জন করে জেমকন সাহিত্য পুরস্কার। নির্মলেন্দু গুণ-এর আরেকটি গ্রন্থ ভ্রমণকথা 'এবং প্যারিস' অর্জন করে সিটি-আনন্দ আলো পুরস্কার। কবি আসাদ চৌধুরীর 'চান্দু চোর ও রাজা চকোর' ও আনোয়ারা সৈয়দ হকের 'টুটুলের মা-গাছ' ইউরো শিশুসাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়। আশরাফুল আলম পিনটুর 'রূপকথা নয় চুপকথা' এম. নুরুল কাদের শিশুসাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়। ২০১০ সালে ছোটদের মেলা শিশুসাহিত্য পুরস্কার অর্জন করেন ছড়াকার মাহমুদ উল্লাহর 'মজার ছড়া' এবং গাজী তানজিয়ার 'জাতিস্মর' উপন্যাসটি অর্জন করে সিটি-আনন্দ আলো পুরস্কার।

 বাংলাপ্রকাশ মনে করে প্রকাশনা মানে, সাহিত্যের কিছু কাজ হাতে নেয়া। প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা। পাঠকদের মাঝে ধ্রুপদী ও স্মরণযোগ্য বই পৌঁছে দেয়া। এই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতেই সামনের দিকে পথ চলা বাংলাপ্রকাশের।